ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্নে বুঁদ ইরফান খান আজ জাতীয় পুরস্কারজয়ী অভিনেতা

প্রয়াত অভিনেতা ইরফান খান
হতে চেয়েছিলেন ক্রিকেটার কিন্তু হয়ে গেলেন অভিনেতা।ছোটবেলা থেকেই ইরফানের প্রথম ভালোবাসা ছিল ক্রিকেট।বড় হয়ে জহির আব্বাস হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন তিনি।ছোট থেকেই ব্যাটে-বলে দক্ষ ছিলেন ইরফান খান।সেকারনে সিকে নাইডু ট্রফিতে (অনূর্ধ্ব-২৩) খেলার সুযোগ পেয়েছিলেন।কিন্তু অর্থাভাবের কারণে খেলা হয়ে ওঠেনি।সেদিনের ৬০০ টাকা জোগাড় করতে না পারার ব্যথা ক্রিকেট থেকে মুখ ফিরিয়ে নিতে বাধ্য করেছিল তাকে।সেদিনের অর্থাভাবের কারণে ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্ন ভেঙে যাওয়ার পর তিনি হয়তো জীবনের সঠিক সিদ্ধান্তটা নিয়েছিলেন।বাইশ গজের থেকে মুখ ফিরিয়ে ন্যাশনাল স্কুল অফ ড্রামার ডাকে সাড়া দেন ইরফান।
Source : Facebook

■ ১৯৬৭ সালের ৭ জানুয়ারি রাজস্থানের জয়পুরে মুসলিম পাঠান পরিবারে জন্ম হয় শাহাবজাদে ইরফান খানের।জন্মসূত্রে তিনি ছিলেন রাজ পরিবারের সন্তান।কিন্তু অভাব ছিল তাদের নিত্যসঙ্গী।ইরফানের বাবা যোগীরদার খান ছিলেন টায়ার ব্যবসায়ী।
Source: facebook

■ ১৯৮৪ সালে ন্যাশনাল স্কুল অফ ড্রামা থেকে মাস্টার ডিগ্রি কমপ্লিট করেন।ড্রামাটিক আর্টসে ডিপ্লোমা ছিল ইরফানের।
মুম্বাইয়ে এসে জীবনের শুরুটা করেছিলেন এসি সারাইয়ের মিস্ত্রি হিসেবে।এবং মজার ব্যাপার প্রথম যে বাড়িতে ইরফান এসি সারাই করতে গিয়েছিলেন, সেটা ছিল রাজেশ খান্নার বাড়ি।
Source : Facebook

■ ১৯৮৮ সালে বলিউডে পা 'সালাম বম্বে' ছবির হাতধরে।এবং প্রথম ছবিতেই একাডেমি আওয়ার্ড এর জন্য নমিনেশন পান তিনি।তারপর আর তাকে ফিরে তাকাতে হয়নি।এরপর তিনি দুর্দান্ত সব ছবি উপহার দিয়ে গেছেন দর্শকদের।তার এই কর্মজীবনে তিনি অনেক পুরস্কার পেয়েছেন।২০১১ সালে ভারত সরকারের পদ্মশ্রী সম্মান তার ঝুলিতে আসে।

■ ১৯৯৫ সালের ৩রা ফেব্রুয়ারি ন্যাশনাল স্কুল অফ ড্রামার ছাত্রী তার ক্লাসমেট সুতপা সিকদার কে বিয়ে করেন ইরফান।তাদের দুইছেলে ববিন ও আয়ান।
Source : Facebook

■ ২০১৮ সালে প্রথম খারাপ খবর আসে।এক টুইটে ইরফান জানান তার নিউরো এন্ডোক্রাইন টিউমার হয়েছে।তিনি এও জানান তার এই রোগের চিকিৎসা চলছে।
কিন্তু এত তাড়াতড়ি যে নক্ষত্র পতন হবে তা কারোর কল্পনাতেও আসেনি।কোলন ক্যান্সার নিয়ে মঙ্গলবার মুম্বাইয়ের কোকিলাবেন হাসপাতালে ভর্তি হন তিনি।আর আজ বুধবার মাত্র ৫৩ বছর বয়সে সকল কে শোকসাগরে ভাসিয়ে চিরতরে বিদায় নিলেন অমিত প্রতিভাবান অভিনেতা ইরফান খান।তিনি আর নেই ,পড়ে রইলো শুধু অজস্র স্মৃতি।কিন্তু শিল্পীর মৃত্যু কোনদিনও হয়না।তিনি বেঁচে থাকবেন তার অসাধারন সব সৃষ্টির মাধ্যমে আমাদের সকলের হৃদয়ে।আমরা Amra-likhi এর তরফ থেকে তাঁর আত্মার শান্তি কামনা করি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য