ঘূর্ণিঝড় আমফান - কোন দেশ নামকরণ করেছে জানুন ! ঝড়ের নামকরণ কিভাবে হয়

আমফান ঝড়

ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ কিভাবে হয় , কারা করে এসব নিয়ে অনেকেই বিভ্রান্ত।আজকের নিবন্ধে আপনাদের সেই বিভ্রান্তি দূর করবো।
প্রথমে বলি ঘূর্ণিঝড়ের নামকরণ কেন করা হয় , আসলে কখন, কোথায় , কোন ঝড় হয়েছে এই বিভ্রান্তি দূর করতেই ঝড়ের নামকরণ করা হয়ে থাকে।আনুষ্ঠানিক ভাবে ১৯৪৫ সাল থেকে গ্রীষ্মমন্ডলীয় অঞ্চলগুলোতে ঝড়ের নামকরণ শুরু হয়।এই নামের তালিকা আগে থেকেই প্রস্তুত থাকে।সেই পূর্বনির্ধারিত ঝড়ের নামের তালিকা থেকেই একের পর এক ঝড়ের নামকরণ করা হয়।
আমফান - এই ঝড় টির নামকরণ করেছে থাইল্যান্ড।এর আগে বুলবুল ঝড়ের নামকরণ করেছিল পাকিস্তান, ফনী ঝড়ের নাম দিয়েছিল বাংলাদেশ।পবনের নাম দিয়েছে শ্রীলঙ্কা।তালিকা বলছে পবন ও আমফান এই দুটি নামের পর শেষ হয়ে যাচ্ছে ঝড়ের নামের তালিকা।২০০৪ সালে ৮ টি দেশ মিলে এই ঝড়ের নামের তালিকা প্রস্তুত করেছিল যা এই আমফান ঝড়ের নামের মাধ্যমে শেষ হয়ে গেল।

কিন্তু যেহেতু ঘূর্ণিঝড়ে ধ্বংস ও মৃত্যুর হাতছানি থাকে তাই একই নাম বারবার ব্যবহার করা যায়না।তাই পরবর্তী ঝড়ের নাম কি হবে তা ইতিমধ্যে তৈরি করা হয়ে গেছে।

পরবর্তী ঝড়ের নামের তালিকা প্রস্তুত করেছে মোট ১৩ টি দেশ মিলে।এই দেশগুলি হলো -ভারত, ইরান, মালদ্বীপ, মায়ানমার, ওমান, বাংলাদেশ, পাকিস্তান, সৌদি আরব, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড, কাতার, সংযুক্ত আরব আমিরশাহি, ইয়েমেন।এই ১৩ টি দেশ মিলে মোট ১৬৯ টি নামকরণ করেছে।নামের তালিকায় রয়েছে -শাহিন, তেজ, গুলাব,অগ্নি, সহ আরও বেশ কয়েকটি  নাম।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

0 মন্তব্য